টেলিযোগাযোগের গোপনীয়তা রক্ষায় হাইকোর্টে রিট

মঙ্গলবার, আগস্ট 10 2021
ফোনে আড়িপাতা বন্ধে হাইকোর্টে রিট
ছবিঃ সংগৃহীত


টেলিফোনে আড়িপাতা বন্ধে এবং ফাঁস হওয়া ঘটনাগুলো তদন্তের দাবিতে সুপ্রিম কোর্টের দশজন আইনজীবী বাদী হয়ে একটি রিট আবেদন করেছেন । এই রিট আবেদনে ডাক ও টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব, বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রন কমিশনের চেয়ারম্যান এবং টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি বিষয়ক মন্ত্রনালয় কে বিবাদী করে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় আবেদনটি দায়ের করা হয়। বার্তাসংস্থা ইউএনবি'র এক খবরে গতকাল একথা জানানো হয়।


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তৎকালীন বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ফোনালাপ, আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ওবায়দুল কাদের ও বিএনপি’র মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামের ফোনালাপ, মেজর সিনহা হত্যার ফোনালাপ সহ ২০১৩ সাল থেকে সংঘটিত হওয়া ২০ টি আড়িপাতার ঘটনা এই রিট আবেদনে উল্লেখ করা হয়। গনমাধ্যমে বহুল প্রচারিত এই ঘটনাগুলো যোগাযোগের ক্ষেত্রে ব্যাক্তিগত গোপনীয়তা সংরক্ষণ আইনের পরিপন্থী। রিট আবেদনে উল্লেখ করা হয়, সংবিধানের ৪৩ অনুচ্ছেদে চিঠিপত্রও যোগাযোগের অন্যান্য উপায়ের গোপনীয়তা সংরক্ষণ নাগরিকের মৌলিক অধিকার হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হয়েছে। এছাড়া ২০০১ এর ধারা ৩০(চ) অনুযায়ী টেলিযোগাযোগের একান্ততা রক্ষা নিশ্চিত করবে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন। এবং টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ আইন ২০০১ এর ৭১ ধারা অনুযায়ী এ ধরনের আড়িপাতা দণ্ডনীয় অপরাধ। যার জন্য রয়েছে দুই বছরের কারাদণ্ড অথবা অনধিক ৫ কোটি টাকা জরিমানা অথবা উভয় দণ্ড বিধান।

তবে বর্তমানে এ ধরনের ফোনালাপ ফাঁসের ঘটনা অহরহ ঘটলেও এ পর্যন্ত কমিশন কারও বিরুদ্ধে কোন মামলা দায়ের করেনি। এরই প্রক্ষিতে, ১০ আইনজীবীর পক্ষে অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ শিশির মনির আবেদনটি দায়ের করেন।
share on