পুঁজিবাজার থেকে অর্থ সংগ্রহের অনুমতি পেলো রবি

বৃহস্পতিবার, সেপ্টেম্বর 24 2020
ঢাকায় রবির প্রধান কার্যালয়
bdnews24


দেশের অন্যতম মোবাইল অপারেটর রবি সম্প্রতি প্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও) এর মাধ্যমে পুঁজিবাজার থেকে ৫২৩ কোটি ৮০ লাখ টাকার মূলধন সংগ্রহের অনুমতি পেয়েছে। এই অনুমতির ফলে দেশের পুঁজিবাজারে সর্বোচ্চ আইপিওধারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে রেকর্ড গড়েছে টেলিযোগাযোগ খাতের গুরুত্বপুর্ন এই প্রতিষ্ঠানটি। ইতিপূর্বে পুঁজিবাজারে সর্বোচ্চ আইপিও ছিল আরেক টেলিযোগাযোগ প্রতিষ্ঠান গ্রামীণফোনের, যার পরিমান ৪৮৬ কোটি ৮ লাখ টাকা। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে রবি আজিয়াটা লিমিটেডের আইপিও অনুমোদনের কথা জানিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

আইপিও আবেদনে অনুমোদনের জন্য বিএসইসিকে ধন্যবাদ জানিয়েছে মালয়েশিয়া ভিত্তিক আজিয়াটা গ্রুপ এবং ভারতের ভারতী এয়ারটেল প্রতিষ্ঠানসমূহের বাংলাদেশী জয়েন্ট ভেঞ্চার প্রতিষ্ঠান রবি আজিয়াটা। রবির চিফ কর্পোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অফিসার সাহেদ আলমের সই করা সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “আমাদের আইপি ‘র আবেদনে সদয় অনুমোদন দেওয়ার জন্য বিএসইসিকে আমরা আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এটি নিঃসন্দেহে রবির জন্য একটি ঐতিহাসিক মুহূর্ত। পূঁজিবাজারের ইতিহাসে সর্ববৃহৎ মূলধনী শেয়ার হিসেবে আমরা তালিকাভুক্ত হতে যাচ্ছি, যা আমাদের জন্য গর্বের।“

উল্লেখ্য, সর্বমোট ৫২৩ কোটি ৭৯ লাখ ৩৩ হাজার ৩৪০ টাকা তহবিল সংগ্রহ করতে পুঁজিবাজারে ১০ টাকা অভিহিত মূল্যে ৫২ কোটি ৩৭ লাখ ৯৩ হাজার ৩৩৪টি শেয়ার ছাড়বে রবি আজিয়াটা গ্রুপ। এই অর্থ প্রতিষ্ঠানটির প্রত্যন্ত অঞ্চলে নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণ ও আইপিও খাতে ব্যয় করা হবে। প্রতিষ্ঠানটির ২০১৯ সালের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী মোট সম্পদের পরিমাণ ১৭ হাজার ১৯৭ কোটি টাকা এবং উক্ত বছরে আয় ১ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম টেলিযোগাযোগ কোম্পানি রবি আজিয়াটা ১৯৯৫ সালের ২২ অক্টোবর কার্যক্রম শুরু করে। কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহাতাব উদ্দিন আহমেদ ও চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ইজাজউদ্দিন বিন ইদ্রিস। রবির পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়ায় বাংলাদেশের তথ্য প্রযুক্তির উন্নয়ন আরো ত্বরান্বিত হবে বলে আশা প্রকাশ করছেন রবির আইপিও ইস্যুর দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফ খান।

share on