প্রত্যাশা পূরণ করতে পারবে নকিয়া ৩৩১০?

প্রত্যাশা পূরণ করতে পারবে নকিয়া ৩৩১০?
প্রত্যাশা পূরণ করতে পারবে নকিয়া ৩৩১০?


১৭ বছর পর পুনরায় বাজারে আসতে যাচ্ছে নকিয়া ৩৩১০। প্রযুক্তি দুনিয়ায় এই অভিনব ঘটনার একমাত্র যৌক্তিক ব্যাখ্যা হতে পারে 'মার্কেটিং স্টান্ট'। তবে কি ব্যর্থ হবে নকিয়া ৩৩১০? খুব সম্ভবত - না।

নকিয়া বাজার হারাতে শুরু করে স্মার্টফোন যুগ শুরুর অব্য‌ব‌হিত পরেই। নকিয়া হার্ডওয়্যার কোম্পানি হিসেবে সফল ছিল। কিন্তু, স্মার্টফোন যুগের চাহিদা ছিল সর্বাধুনিক সফটওয়্যার পণ্যের। অ্যাপল, গুগল সফটওয়্যার নির্মাণের পাশাপাশি দক্ষতার পরিচয় প্রদান করে হার্ডওয়্যার আউটসোর্সিং নীতিতে। কাজেই এই সকল কোম্পানি শুধুমাত্র ফোন নির্মাণ নয়, মনোনিবেশ করে সেরা সফটওয়্যার ও হার্ডওয়্যার নির্মাতার সম্মিলন ঘটানোর কাজে। নকিয়া ব্যর্থ হয় এখানেই। পরবর্তীতে ২০১৪ সালে নকিয়া ব্যবসা বিক্রয় করে সফটওয়্যার কোম্পানি মাইক্রোসফটের কাছে। মাইক্রোসফট মূলত তাদের মোবাইল অপারেটিং সিস্টেমের প্রসারে প্রায় ৭বিলিয়ন ডলারে কিনে নেয় নকিয়া। পরবর্তীতে ২০১৬ সালে তারা নকিয়ার ফিচারফোন ব্যবসা বিক্রয় করে এইচএমডি গ্লোবাল নামের ফিনিস্ কোম্পানির কাছে। এইচএমডি শুধুমাত্র ফিনল্যান্ডের কোম্পানি বলেই নয়, নকিয়ার হেডকোয়ার্টারের বিপরীত দিকে অবস্থিত এই প্রতিষ্ঠানে কর্মরত রয়েছেন প্রাক্তন নকিয়ার কর্মকর্তাদের অনেকেই। তাইওয়ানের ফক্সকনের সাথে যৌথ উদ্দ্যোগে ২০১৬ সালে নকিয়া ফোন তৈরী শুরু করে এইচএমডি। নকিয়া ১৫০ নামের একটি ফিচারফোন ছিল এই প্রচেষ্টার প্রথম পণ্য। আর এবছর ফেব্রুয়ারীতে এইচএমডি বার্সেলোনায় ঘোষণা করে নকিয়া ৩, নকিয়া ৫, নকিয়া ৬ ও নকিয়া ৩৩১০। লক্ষ্যণীয় যে, এই চারটি ফোনের তিনটিই স্মার্টফোন। কাজেই, এইচএমডি যে স্মার্টফোনেই বাজী রাখবে তার ইঙ্গিত এখানেই সুস্পষ্ট। তাহলে, কি হবে নকিয়া ৩৩১০ এর ভাগ্যে? ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমস এক প্রতিবেদেনে জানাচ্ছে, এলজি জি৬, সনি এক্সজেড প্রিমিয়াম এর মতো ফ্ল্যাগশিপ ফোন থেকে দশগুন মনোযোগ লাভ করেছে নকিয়া ৩৩১০। অবমুক্তির পরে কি হবে তা হিসেবে না নিয়েও বলা যায়, এই ফিচার ফোন সম্ভবত "মুক্তির আগেই হিট" চলচ্চিত্রের মতোই স‌ফল হয়েছে নকিয়ার এই দ্বিতীয় জীবনের দিকে সকল আলো শুষে নেয়ার মিশনে।
share on        

similar news